sinor school admisation change

এবার উচ্চমাধ্যমিকে ভর্তির আবেদন করতে হবে অনলাইনে। এছাড়া ভর্তিতে মুক্তিযোদ্ধা ছাড়া কোনো কোটা থাকবে না। ৯৫ শতাংশ আসন পূরণ করা হবে মেধায়। প্রবাসীর সন্তান ও প্রতিবন্ধীরা ভর্তি হতে পারবে। তবে কোটায় নয়, শিক্ষা বোর্ডের সুপারিশে বিশেষ বিবেচনায়।

এবিষয়ে নীতিমালা চূড়ান্ত করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। আগামী ১০ মে থেকে ভর্তির আবেদন নেওয়া শুরু হবে। আর শেষ হবে ২৫ জুন। বৃহস্পতিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় ভর্তির এ নীতিমালা চূড়ান্ত করা হয়। এবিষয়ে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক মো. হারুন অর রশিদ বলেন, ‘এসএমএসের মাধ্যমে আবেদন প্রক্রিয়ায় নানান ভোগান্তি হয় বলে এবার থেকে শুধু অনলাইনে আবেদন নেওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে।’

খসড়া নীতিমালায় বিভিন্ন কোটা তুলে দেওয়ার প্রস্তাব রাখা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ভর্তি নিশ্চয়ন ফি ১৩০ টাকার বদলে ১৩৫ টাকা নির্ধারণের প্রস্তাব রাখা হয়েছে।’

গ্রামাঞ্চলের শিক্ষার্থীদের অনলাইনে আবেদন করতে সমস্যা হবে কি না- এই প্রশ্নে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেন, ‘এখন প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনলাইন সেন্টার রয়েছে। এছাড়া ইউনিয়ন পর্যায়ে সরকারের ডিজিটাল তথ্যসেবা কেন্দ্র রয়েছে। শিক্ষার্থীরা চাইলে এসব সেন্টারে গিয়ে সেবা নিতে পারবে। ফলে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে কোনো শিক্ষার্থীর অসুবিধা হবে না।’

নীতিমালার খসড়ায় বলা হয়েছে, প্রথম ধাপের ১০ থেকে ২০ মে ভর্তি আবেদন নেওয়া হবে। ২৭-৩১ জুন যাচাই-বাছাই, আপত্তি ও নিষ্পত্তি করে ৮ জুন প্রথম ধাপের ফল প্রকাশ করা হবে। তবে পুনঃনিরীক্ষায় যাদের ফল পরিবর্তন হবে তারা ১-৩ জুন পর্যন্ত আবেদনের সুযোগ পাবে।

দ্বিতীয় ধাপে ১৭-২০ জুন আবেদন নিয়ে ২০ জুন ফল প্রকাশ করা হবে। আর তৃতীয় ধাপে ২৩- ২৫ জুন আবেদন নিয়ে ২৫ জুন রাতে ফল প্রকাশ করা হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, শিগগিরই একাদশে ভর্তি নীতিমালা চূড়ান্ত করে তা জারি করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *